সদস্য হওয়ার নিয়ম

সদস্য পদ

অত্র ফাউন্ডেশণের উদ্দেশ্যবলীর সাথে একমত পোষণকারী এবং তা অর্জনে আগ্রহী যে কোন বাংলাদেশী নাগরিক ফাউন্ডেশণের নির্ধারিত ফরমের মাধ্যমে চেয়ারম্যান/সাধারণ সম্পাদক এর নিকট নিধারিত চাঁদা প্রদান করে সদস্য পদ লাভের জন্য দরখাস্ত করবেন। চেয়ারম্যান /সাধারণ সম্পাদক পরিচালক পর্ষদের সাথে পরামর্শক্রমে সদস্যপদ প্রদান অথবা নামমঞ্জুর করতে পারবেন।

ফাউন্ডেশণের তিন প্রকার সদস্য পদের বিবরন

ক. সাধারণ সদস্য

স্থায়ী সদস্য ব্যতিত অন্যান্য সদস্যগণ সাধারণ সদস্য হিসাবে বিবেচিত হবেন ফাউন্ডেশণের উদ্দেশ্যের সাথে একমত পোষণকারী এবং এর নিয়মাবলী মেনে চলতে অঙ্গীকারবদ্ধ যে কোন ব্যক্তি মাসিক ১,৫০০/- (পনেরশত টাকা) অথবা বাৎসরিক ১৮,০০০/- (আঠার হাজার টাকা) চাঁদা প্রদানকারী হলে এবং সংঘস্মারকে বর্ণিত উদ্দেশ্যাবলী মেনে চললে ফাউন্ডেশণের সাধারন সদস্যপদ অর্জনে যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

খ. স্থায়ী সদস্য বা আজীবন সদস্য

সংঘস্মারকের স্বাক্ষরকারীগণ আজীবন সদস্য হিসাবে বিবেচিত হবেন যারা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিষদের সদস্য থাকবেন। প্রয়োজনে সাধারণ সদস্যের মধ্য হতে নির্বাহী পরিষদের সদস্য নির্বাচনের মাধ্যমে গ্রহণ করা যাবে। যদি কোন ব্যক্তি এককালীন একলক্ষ টাকা দান করেন তবে তিনি আজীবন সদস্য হিসাবে গণ্য হবেন। এই শ্রেণীর সদস্যগণ ফাউন্ডেশণের সাধারণ সভায় উপস্থি থাকতে এবং ভোট দিতে ও নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

গ) দাতা সদস্য

যিনি সর্বনিম্ন ৫,০০০/- (পাঁচ হাজার টাকা) এককালীন দান করবেন তিনি দাতা সদস্য হিসাবে গণ্য হবেন।

বিঃ দ্রঃ কেন্দ্রীয় পরিচালনা পর্ষদ এর সভাপতির অনুমোদন ছাড়া যে কোন সদস্যপদ বেআইনি / অগ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •